Cheap Jerseys Wholesale Jerseys Cheap Jerseys Wholesale Jerseys Cheap Jerseys Cheap NFL Jerseys Wholesale Jerseys Wholesale Football Jerseys Wholesale Jerseys Wholesale NFL Jerseys Cheap NFL Jerseys Wholesale NFL Jerseys Cheap NHL Jerseys Wholesale NHL Jerseys Cheap NBA Jerseys Wholesale NBA Jerseys Cheap MLB Jerseys Wholesale MLB Jerseys Cheap College Jerseys Cheap NCAA Jerseys Wholesale College Jerseys Wholesale NCAA Jerseys Cheap Soccer Jerseys Wholesale Soccer Jerseys Cheap Soccer Jerseys Wholesale Soccer Jerseys
  • Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850

হাসপাতাল ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে মূল্য তালিকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে

নতুন ফেনী
প্রকাশ : | সময় : ৩:১৭ অপরাহ্ণ

ডা. সাহেদুল ইসলাম কাওসার আত্ম-মানবতার সেবার এক অনন্য দৃষ্টান্ত। একজন চিকিৎসক, সাংবাদিক ও সমাজসেবক হিসেবে ফেনীর মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবাসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃত্বে থেকে কাজ করে চলেছেন। রেসপিরেটরী মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সাহেদুল ইসলাম কাওসার বাংলাদেশ এসোসিয়েশন বিএমএ’র ফেনী জেলার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন নিরাপদ সড়ক চাই নিসচা’র, আহবায়কের দায়িত্বে রয়েছেন ফেনী বিজ্ঞান ক্লাবের। এ্যাজমা এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, চেষ্ট এন্ড হার্ট এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, বাংলাদেশ সোসাইটি অব আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, দূর্ণীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য তিনি। এছাড়াও তিনি সম্পাদনা করছেন পাক্ষিক স্প্রেকট্রাম নামের একটি পত্রিকা। ফেনীর স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে নতুন ফেনীর পক্ষে তার সাথে খোলামেলা কথা বলেছেন নির্বাহী সম্পাদক নুর উল্লাহ কায়সার

নতুন ফেনী: স্বাস্থ্য মানুষের মৌলিক অধিকার। ফেনীর মানুষ এ অধিকার কতটুকু ভোগ করতে পারছে?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: বর্তমান সরকার জনগনের এ মৌলিক অধিকারটি নিয়ে ব্যাপক ভাবে কাজ করছে। স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সরকার দেশব্যাপী নতুন হাসপাতাল স্থাপন ও শয্যা বর্ধিত করেছে। এ মৌলিক সেবাটি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে প্রতিটি ইউনিয়নে ডিগ্রিধারী ডাক্তার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছাড়াও সরকার কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করে স্বাস্থ্য সেবায় অনন্য নজির স্থাপন করেছে।

নতুন ফেনী: এ অধিকারটি সম্পর্কে ফেনীর মানুষ কতটুকু সচেতন?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: অন্যান্য জেলার তুলনায় ফেনী অগ্রসর হওয়ায় এখানকার মানুষ স্বাস্ব্যসেবা সম্পর্কে বেশ সচেতন।

নতুন ফেনী: ফেনীতে প্রায় ১৬ লক্ষ মানুষের বসবাস। এখানে ২৫০ শয্যার আধুনিক সদর হাসপাতাল ছাড়াও প্রায় অর্ধশতাধিক হাসপাতাল ও ক্লিনিক গড়ে উঠেছে। এগুলো কতটা মানুষের উপকারে আসে।
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: ফেনীসহ আশপাশের জেলার মানুষের জন্য আগে ১শ শয্যার একটি সরকারী হাসপাতাল ছিলো। রোগীদের অতিরিক্ত চাপ, হাসপাতালের সেবার মান বাড়াতে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির সন্নিবেশ করে এ হাসপাতালকে সরকার ২৫০ শর্য্যায় উন্নীত করেছে। সরকারী হাসপাতাল ছাড়াও ফেনীতে গড়ে ওঠা অন্যান্য হাসপাতালে প্রতিনিয়ত রোগীদের চাপ বাড়ছে। কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া বেসরকারীভাবে গড়ে ওঠা এসব হাসপাতাল সেবার মান ধরে রাখতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

নতুন ফেনী: শহরে যত্রতত্র গড়ে ওঠা এসব হাসপাতাল সম্পর্কে অতিরিক্ত ফি আদায়, চিকিৎসা অবহেলাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। কিভাবে এসব হাসপাতাল তাদের সেবার মান বাড়াতে পারে বলে আপনি মনে করেন?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: রোগীদের এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে হাসপাতাল মালিকদের নিয়ে হাসপাতাল ডায়াগষ্টিক সেন্টার মালিক সমিতি একটি শক্তিশালী সংগঠন করা হয়েছে। ওই সংগঠন যাবতীয় সেবার মূল্য নির্ধারণ করে হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ওই তালিকা সাঁটানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, অভিজ্ঞ নার্স ও শক্তিশালী পরিচালনা কমিটির মাধ্যমে হাসপাতালগুলো সার্বক্ষণিক তদারকি করা গেলে সেবার মান অবশ্যই বাড়বে। তবে এক্ষেত্রে মালিক ও কর্মকর্তা কর্মচারীদের পক্ষের সেবার মানসিকতাই বড় ভূমিকা পালন করে।

11182075_831927366844775_1290547265897636916_n

নতুন ফেনী: আপনি বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন। স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ণে এ সংগঠন ফেনীতে কেমন ভূমিকা পালন করছে।
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: বিভিন্ন সময়ে বিএমএ’র পক্ষ থেকে সচেতনতামূলক সেমিনার ও সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও জেলা সিভিল সার্জনের সাথে সমন্বয় করে সংগঠনটি বিভিন্ন কর্মসূচী অব্যাহত রেখেছে। চিকিৎসকদের মানোন্নয়ন করতে সব সময়ই জাতীয় ভাবে বিএমএ কাজ করছে। যদিও এ সংগঠনটি ডাক্তারদের অধিকার আদায়ের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

নতুন ফেনী: স্বাস্থ্য সেবায় আপনি অগ্রজ ভূমিকা পালন করছেন। দু:স্থ্য ও গরীব রোগীদের জন্য নিজ গ্রামে একটি হাসপাতাল গড়ে তুলেছেন।  এ সম্পর্কে বিস্তারিত বলুন।
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: আমার গ্রামের বাড়ি ফুলগাজীর জগতপুরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে অসহায় ও দু:স্থ্য রোগীদের জন্য বিনামূল্যে মেডিকেল ক্যাম্প আয়োজন করেছি। এসব ক্যাম্পে প্রত্যন্ত অঞ্চলের হতদরিদ্র মানুষকে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র সহ বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করা হয়েছে। বিগত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে আমার নিজ বাড়ীতে মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করে গরিব রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করে আসছি। চলতি বছরের এপ্রিলে ওই ক্যাম্পকে বর্ধিত করে ২৫ শতাংশ জায়গায় প্রায় ৫০ লাখ টাকা ব্যায়ে দ্বিতল ভবন বিশিষ্ট আনোয়ার-সাজেদা হেলথ কেয়ার সেন্টার নামে হাসপাতালে উন্নীত করা হয়। এ হাসপাতাল থেকে প্রতিদিন রোগীরা নামমাত্র মূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করে থাকেন।

নতুন ফেনী: এ হাসপাতালে রোগীদের কি কি সেবা প্রদান করে থাকে?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: নামমাত্র মূল্যে জেনারেল মেডিকেল চিকিৎসা, স্ত্রী রোগ, শিশু রোগ, চক্ষু চিকিৎসার মাধ্যমে ল্যান্স প্রতিস্থাপন, আল্ট্রাসনোগ্রাফী, ইসিজি ও প্যাথলজি সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে।

নতুন ফেনী: আপনি একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। একজন সাংবাদিক ও সম্পাদক। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথেও দীর্ঘদিন থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। এতোগুলো কাজ একসাথে সামলান কিভাবে?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: সামাজিক দায়িত্ববোধ থেকে বিভিন্ন সোবমূলক সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করছি। চিকিৎসা আমার পেশা হলেও সাংবাদিকতা আমার শখ। পেশাগত দায়িত্বের পাশাপাশি সামাজিক কার্যক্রমগুলো আমার দৈনন্দিন কর্মসূচীরই অংশ। তাই এসব কাজে আমার তেমন কোন সমস্যা হয়না।

নতুন ফেনী: স্বাস্থ্য সেবায় আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা আছে কিনা?
সাহেদুল ইসলাম কাওসার: আমার প্রতিষ্ঠিত আনোয়ার-সাজেদা হেলথ কেয়ার হাসপাতালটি আরো সম্প্রসারিত করে জগতপুর না পুরো ফুলগাজীবাসী এখান তেকে স্বল্পমূল্যে স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবে। এটি পূর্ণাঙ্গ হাসপাতালে রুপান্তরিত করতে পারলে আমার একটি বড় স্বপ্নের বাস্তবায়ন হবে।

আপনার মতামত দিন