ফেনীর ছয় উপজেলার ৬৪ বাড়ি লকডাউন • নতুন ফেনীনতুন ফেনী ফেনীর ছয় উপজেলার ৬৪ বাড়ি লকডাউন • নতুন ফেনী
 ফেনী |
২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৫ আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফেনীর ছয় উপজেলার ৬৪ বাড়ি লকডাউন

নতুন ফেনী ডেস্কনতুন ফেনী ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ, ১১ এপ্রিল ২০২০

ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে গ্রামের বাড়িতে আসায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকিতে রয়েছে ফেনী। এখন পর্যন্ত জেলায় কোন আক্রান্ত রোগী শনাক্ত না হলেও এনিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে আতংক ও উদ্বেগ-উৎকন্ঠা কিছুতেই কাটছেনা।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে লকডাউন অমান্য করে অসংখ্য মানুষ ফেনীর গ্রামের বাড়িতে ছুটছেন। এরকম অন্তত ৩০ জনের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তাদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করার জন্য মনিটরিং করতে ওই তালিকা জেলা প্রশাসনের কাছে প্রেরণ করা হয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা. সাজ্জাদ হোসেন জানান, মানুষ গ্রামে ছুটে আসায় ফেনী জেলা করোনা সংক্রমণ ঝুঁকিতে রয়েছে। তবে হোম কোয়ারেন্টিন মেনে চললে ঝুঁকি কেটে যাবে। ইতিমধ্যে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া দুই ব্যক্তির শরীরে করোনা শনাক্ত হয়নি।

বিভিন্ন সূত্র জানায়, সদর উপজেলার ফাজিলপুর, লেমুয়া ও ছনুয়া ইউনিয়নে নারায়নগঞ্জ ও গাজীপুর থেকে আসা ৭ পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে। মোটবী ইউনিয়নের বাঘাইয়া গ্রামে ও মোটবী গ্রামের দুই বাড়ি লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে।

ফুলগাজী উপজেলার জয়পুর, পূর্ব ঘনিয়ামোড়া, মনতলা, মুন্সিরহাট ইউনিয়নের ফতেহপুর, উত্তর জাম্বুরা গ্রাম, জিএমহাট ইউনিয়নের শ্রীচন্দ্রপুর, দরবারপুর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীপুরে ৯ বাড়িতে লাল পতাকা টাঙিয়ে তাদের মনিটরিংয়ে রেখেছে উপজেলা প্রশাসন।

সোনাগাজীর আমিরাবাদ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের চরকৃষ্ণজয় গ্রামের গুচ্ছগ্রাম আশ্রয়ণ প্রকল্পে ১ জন, পশ্চিম আহম্মদপুরে ৩ জন নারায়ণগঞ্জ থেকে বাড়ীতে আসায় আজ শুক্রবার ওই চার ব্যক্তির বাড়ী লকডাউন ঘোষণা করা হয়। তারা যেন খাদ্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য বাড়ী থেকে বের হতে না হয় সেজন্য ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল আলম জহির খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেন।

একই উপজেলার চর চান্দিয়া ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর ও মতিগঞ্জ ইউপির স্বরাজপুর, ভাদাদিয়া ও ভোয়াগ এলাকায় গ্রামীণ সড়কে বাঁশ বেঁধে ও গাছ ফেলে স্বেচ্ছায় লকডাউন করেছে এলাকাবাসী।

পরশুরামের মির্জানগর ইউনিয়নে ১৭ টি ও চিথলিয়া ইউনিয়নে ৯টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

অপরদিকে ছাগলনাইয়ার রাধানগর ইউনিয়নের মোকামিয়া, পূর্ব কাশিপুর, নিজপানুয়া, মহামায়া ইউনিয়নের জয়নগর, পাঠাননগর ইউনিয়নের মধ্যম শিলুয়া, পৌরসভার পূর্ব ছাগলনাইয়া সহ ১৬টি বাড়ীতে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়।

এছাড়া এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে, এক উপজেলা থেকে আরেক উপজেলায় প্রবেশ না করতে কঠোর সতর্কতা সহ নানা নির্দেশনা দিয়েছেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকেও সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরীন সুলতানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রিয় ফেনীবাসী, গত কয়েকদিনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-চট্টগ্রাম থেকে অনেকেই গোপনে ফেনীতে এসেছেন বলে আমরা সংবাদ পাচ্ছি। যারা এইসময় লুকিয়ে তাদের পরিবারের কাছে আসছেন তারা পরিবারের সবাইকেই বিপদে ফেলছেন। এজন্য সকলে সতর্ক থাকুন। এইসব জায়গা থেকে আগত কেউ যেন ঘরের বাইরে ঘুরাফেরা না করতে পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকুন। এরা ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন এ থাকবেন। তাদের নাম ঠিকানা জানান। এছাড়া তাবলীগ জামাত থেকে কেউ আসলে জরুরিভাবে অবহিত করুন। তাদেরও পরিক্ষা করাটা জরুরি। সাবধান হোন, ঘরে থাকুন।’

জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান বলেন, যারা ঢাকা কিংবা নারায়নগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে গোপনে গ্রামের বাড়িতে আসছেন তাদের খোঁজ পাওয়া মাত্রই পৃথকভাবে রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে তিনি এলাকাবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।
সম্পাদনা: আরএইচ/এনজেটি

আপনার মতামত দিন

Android App
Android App
Android App
© Natun Feni. All rights reserved. Design by: GS Tech Ltd.