মহামায়া ঘাট সেতুটি বিনোদনের স্থানে পরিনত • নতুন ফেনীনতুন ফেনী মহামায়া ঘাট সেতুটি বিনোদনের স্থানে পরিনত • নতুন ফেনী
 ফেনী |
২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মহামায়া ঘাট সেতুটি বিনোদনের স্থানে পরিনত

মো. কামরুল হাসান, নিজস্ব প্রতিনিধিমো. কামরুল হাসান, নিজস্ব প্রতিনিধি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:১৯ অপরাহ্ণ, ৩১ মার্চ ২০২২

ফেনীতে অবহেলিত মানুষের জন্য নির্মিত মহামায়া ঘাট সেতুটি বিনোদনের কেন্দ্রে পরিনত হয়েছে। প্রতিদিন দূর-দূরান্ত ছুটে আসছেন ভ্রমণ পিয়াসু হাজারো মানুষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জেলার ছাগলনাইয়া ও ফুলগাজী উপজেলার মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে মুহুরী নদীর উপর সংযোগস্থল মহামায়াঘাট সেতুটি নির্মান করা হয়। মুক্ত বাতাসে নিজের গাঁ ভাসাতে এবং মানুষ স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে সেখানে প্রতিদিন জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে সকাল সন্ধ্যা ছুটে আসছেন অনেকে।

ব্রীজের উপর সখ্যতা করে ছবি তুলতে আসা আব্দুল্লাহ আল নোমান নামের এক যুবক নতুন ফেনী’কে বলেন, ফেসবুকে কিছুদিন ধরে দৃষ্টি নন্দন ব্রীজের ছবি ভেসে উঠতে দেখে এখানে আসার ইচ্ছে জাগলো তাঁর। এলাকার কয়েকজন বন্ধু নিয়ে এসে অনেক ভালো লাগছে। এখানে প্রকৃতি আসলেই অনেক সুন্দর, না এলে কখনোই বুঝতাম না। দৃষ্টিনন্দন ব্রীজটি নির্মান করায় স্থানীয় সাংসদ ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি। এছাড়াও সৌন্দর্য বর্ধনে ব্রীজের পাশে একটি লেক পার্ক করার অনুরোধ জানান সংশ্লিষ্টদের প্রতি।

স্থানীয়রা জানায়, কালের বিবর্তনে এ অঞ্চলের হাজার হাজার পেশাজীবী মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন নৌকায় মহামায়াঘাট পার হয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। স্বাধীনতার পূর্ব থেকেই এলাকাবাসী এবং স্থানীয় সাংবাদিক ও সংগঠক এবিএম নিজাম উদ্দিন ছাগলনাইয়া ও ফুলগাজী উপজেলার সংযোগস্থল মুহুরী নদীর উপর মহামায়াঘাট সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

অবহেলিত এ দুই অঞ্চলের মানুষের শিক্ষা, চিকিৎসা, ব্যবসা ও দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে মানুষের চলাচলের জন্য মহামায়া ঘাটে সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেন ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য শিরিন আখতার এবং ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল। সাংবাদিক এবিএম নিজাম উদ্দিন’র ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সেতুটি নির্মাণ হয়েছে। ৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ৯০ মিটার লম্বা ও ৫.৫০ মিটার প্রসস্থ এ সেতুটি নির্মানে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল।

সেখানে কথা হয় সেতুটির স্বপ্নদ্রষ্টা সাংবাদিক ও সংগঠক এবিএম নিজাম উদ্দিন’র সাথে। নতুন ফেনী’র এই প্রতিবেদকের আলাপকালে তিনি বলেন, যুগ যুগ ধরে এ অঞ্চলের মানুষ অবহেলিত ছিলো। মহামায়া ঘাটে মুহুরী নদীর ওপর সেতু না থাকায় যুগের পর যুগ এলাকার মানুষের চলাচলের জন্য সহজ কোন মাধ্যম ছিলোনা। যার ফলে মানুষের দূর্ভোগ আর ভোগান্তির মধ্যে দিন কাটাতে হতো।

প্রায় ৫০ বছরের স্বপ্ন পূরণ হতে যাওয়া সেতুটিকে ঘিরে ২ উপজেলার লাখো মানুষের মধ্যে এখন বইছে আনন্দের জোয়ার। প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে সেতুটিকে একনজর দেখতে ছুটে আসেন ভ্রমণ পিয়াসু হাজারো মানুষ। দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ করায় তিনি ও এলাকাবাসী সরকারের প্রতি  কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল বলেন, ছাগলনাইয়ার মহামায়াঘাটে মুহুরী নদীর উপর সেতু নির্মাণ ছিল এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন করেছেন। এ সেতুটি নির্মাণের ফলে ওই অঞ্চলের মানুষের জীবন যাত্রার মান অনেক উন্নত হবে।

এ ব্যাপারে ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য শিরীন আখতার বলেন, জনগণের দাবির প্রেক্ষিতে আমরা ছাগলনাইয়ায় মুহুরী নদীর উপর মহামায়া ঘাটে সেতু নির্মাণ করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কারণে দেশব্যাপী যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন সেতু নির্মাণের ফলে এ অঞ্চলের মানুষের দুঃখ কষ্ট লাঘব হবে।

সম্পাদনাঃ আরএইচ/এমকেএইচ

আপনার মতামত দিন

Android App
Android App
Android App
© Natun Feni. All rights reserved. Design by: GS Tech Ltd.