“নেতৃত্ব গুনের কারণেই লিপটনকে অন্যান্য প্রার্থীরা সমর্থন করেছে”- নিজাম হাজারী • নতুন ফেনীনতুন ফেনী “নেতৃত্ব গুনের কারণেই লিপটনকে অন্যান্য প্রার্থীরা সমর্থন করেছে”- নিজাম হাজারী • নতুন ফেনী
 ফেনী |
২৮ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

“নেতৃত্ব গুনের কারণেই লিপটনকে অন্যান্য প্রার্থীরা সমর্থন করেছে”- নিজাম হাজারী

আলমগীর রিপন, নিজস্ব প্রতিনিধিআলমগীর রিপন, নিজস্ব প্রতিনিধি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৪০ অপরাহ্ণ, ০১ মে ২০২৪

সোনাগাজীতে ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেছেন, নির্বাচনী সকল পরীক্ষায় সোনাগাজী উপজেলা সকল পর্যায়ে সফল হয়েছে। বিশেষ করে সর্বশেষ জাতীয় নির্বাচনে যেখানে তাদের (জাতীয়পার্টি) সমর্থন ১০ভাগ ছিলো সেখানে আপানারা (আওয়ামিলীগ) ৯০ভাগে পরিনত করেছেন। অতীতে যেকোনো নির্বাচন ও সাংগঠনিক নির্দেশনা খুবই আন্তরিকতার সাথে গ্রহণ করে আপনারা পালন করেছেন। তাই আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আগামী উপজেলা নির্বাচন উপলক্ষে আমরা জেলা আওয়ামীলীগে জরুরী সভা ডাকি। যারা প্রার্থী হবে তাদের নাম দিতে বলা হয়। সব উপজেলায় একাধিক প্রার্থী ছিলো। অন্যান্য উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিজের মধ্যে সমঝোতা করে আসতে বলা হয়।

কিন্তু সোনাগাজী উপজেলার বিষয়ে ছিলো ভিন্নতা। এখানে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জেডএম কামরুল আনাম ও উপজেলা আওয়ামিলীগ নেতা ফয়েজ সেলিম জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটনকে সমর্থন দেয়। এতে করে আমরা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্দিধায় লিপটনের নাম ঘোষণা করি। আমি মনে করি এটি নেতৃত্ব গুনের কারণে সম্ভব হয়েছে। নিজের নেতৃত্ব গুনের মাধ্যমে অতীতের সময় গুলো পরিচালনা করার কারণে তার অবস্থান তৈরী হয়েছে। এবং অন্যরা ছাড় দিয়েছে।

বুধবার (১ মে) সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি এসব বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমি এখানে এমপি হিসেবে আসেনি। আমি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসবে আসছি। আমাকে যদি দুইটি পদের মধ্যে একটি পদ ছাড়তে বললে তবে আমি সংসদ সদস্য পদ ছেড়ে দেবো। জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে থেকে আপনাদের পাশে থাকতে চাই।

সাম্প্রতিক সময়ে সোনাগাজী উপজেলার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দুইজন নেতার বিষয়টি তুলে ধরে নিজাম উদ্দিন হাজারী তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে উপজেলা ছাত্রলীগকে নির্দেশ দেয়। এছাড়াও জুরুরী সভার আহবান করে অন্যান্য নেতাদের বার্তা দিতে। কোনো নেতাকর্মী যদি অপকর্মে জড়ায় তাদেরকে নিজেই আইনের সোপর্দ করতে হবে। দুই-একজনের কারণে নিজের এত কষ্টের সম্মান ম্লান করতে দেয়া যাবে বলে হুশিয়ারী দিয়ে আরো বলেন, আমাদের আওয়ামিলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কোনো নেতাকর্মীদের গাছে যদি বিনা কারণে আঘাত করা হয় তাদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুফিজুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খোকনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ফয়েজ কবির, যুগ্ম সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, ফেনী পৌরভার মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন বাহার।

এসময় উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজিজুল হক হিরণ, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভুট্টো, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আব্দুল মোতালেব চৌধুরী রবিন, উপজেলা সভাপতি মাহমুদুর রহমান রাসেল, সাধারণ সম্পাদক মিনহাজ উদ্দিন সাইমুন ভূইয়া সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্পাদনাঃ আরএইচ/এএইচ

আপনার মতামত দিন

Android App
Android App
Android App
© Natun Feni. All rights reserved. Design by: GS Tech Ltd.