কাশ্মীর রূপে, গুণে বিমুগ্ধ নগরী • নতুন ফেনীনতুন ফেনী কাশ্মীর রূপে, গুণে বিমুগ্ধ নগরী • নতুন ফেনী
 ফেনী |
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৪ আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কাশ্মীর রূপে, গুণে বিমুগ্ধ নগরী

নতুন ফেনীনতুন ফেনী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৩৮ অপরাহ্ণ, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাশ্মীরের সৌন্দর্য্য নিয়ে অনেক কবিতা, বহু গান রচিত হয়েছে৷ আমাদের রবীন্দ্রনাথও কাশ্মীরের ঝিলম নদী নিয়ে কবিতা লিখেছেন৷নানা সংস্কৃতি আর ভাষার মানুষের বসবাস কাশ্মীরে৷ আছে নানা ধর্মের মানুষও৷ কাশ্মীক উপত্যকার অধিকাংশ মানুষ মুসলমান৷ হিন্দুদের বাস জম্মু এলাকায়৷ আর লাদাখে আছেন বৌদ্ধরা৷

কাশ্মীরের আরেকটি বিখ্যাত জিনিস জাফরান৷ ইরান আর স্পেনের পর ভারত বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাফরান রপ্তানিকারক৷ সুন্দর সব ফুলের বাগান আর বরফে ঢাকা সাদা পাহাড়চূড়ার দেখা পাওয়া যায় কাশ্মীরে৷ তাই অনেকে কাশ্মীরকে পুবের সুইজারল্যান্ড বলে ডাকেন৷ ২০১৪ সালে জম্মু ও কাশ্মীরে প্রায় ১১ লক্ষ পর্যটক গিয়েছিল৷

শীত এলে পুরো কাশ্মীরের রঙ সাদা হয়ে যায়৷ তখন শীতকালীন খেলাধুলার জন্য কাশ্মীর উপযুক্ত হয়ে ওঠে৷ কিন্তু অপর্যাপ্ত অবকাঠামোর কারণে সেটা সম্ভব হয় না৷কাশ্মীরের হিমালয় অংশ থেকে ঐ অঞ্চলের প্রায় ২০টি নদী পানি পেয়ে থাকে৷ নদীগুলোর মধ্যে সিন্ধু, চেনাব আর ঝিলম সবচেয়ে বড়৷ এছাড়াও রয়েছে নীলম, রবি, দোদা ইত্যদি বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য নদী৷ বেশিরভাগ নদীই ভারত থেকে পাকিস্তানের দিকে প্রবাহিত হয়েছে৷

জাফরানের মতো কাশ্মীরের কাঠও বেশ বিখ্যাত৷ ভালো ক্রিকেট ব্যাটের জন্য কাশ্মীরের কাঠের যেন বিকল্প নেই৷ এই কাঠ দিয়ে নৌকাও তৈরি হয়৷ষোড়শ শতকে কাশ্মীরে সুফিবাদের আগমন ঘটেছিল৷ সেই থেকে সেখানকার মানুষ সুফিবাদের চর্চাকারীদের পছন্দ করেন৷

গত শতকের আশির দশকে বলিউডের ছবি নির্মাতাদের কাছে সবচেয়ে প্রিয় ‘লোকেশন’ ছিল কাশ্মীর৷ সেই সময়টা ছিল কাশ্মীরের জন্য স্বর্ণযুগ৷ কিন্তু এখন সেখানে প্রায় প্রতিদিনই সংঘাতের ঘটনা ঘটছে৷ ফলে নির্মাতারাও সেখান থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে৷ বর্তমানে সারা বছরে মাত্র এক থেকে দু’টি ছবির শ্যুটিং হয় কাশ্মীরে৷১৯৪৮ সাল থেকে কাশ্মীর নিয়ে ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে সংঘাত চলে আসছে৷ অদূর ভবিষ্যতে সেটার সমাধান হবে কিনা তার কোনো উত্তর কারও জানা নেই৷
সম্পাদনা:আরএইচ/এইচআর

আপনার মতামত দিন

Android App
Android App
Android App
© Natun Feni. All rights reserved. Design by: GS Tech Ltd.